হবিগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, ফরিদপুর ও ঝালকাঠিসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মঙ্গলবার খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বি’ক্ষো’ভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বিএনপি। বি’ক্ষো’ভ মিছিলে পু’লিশ বা’ধা দেয়ায় বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে তাদের সং’ঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় পু’লিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর লা’ঠিপে’টা (লা’ঠিচার্জ) করে। এছাড়া গু’লিবর্ষণের ঘটনাও ঘটে।

এসব ঘটনায় বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মী আ’হত হয়েছে। হবিগঞ্জে বি’ক্ষো’ভ মিছিলে বা’ধা দেয়াকে কেন্দ্র করে বিএনপি নেতাকর্মী ও পু’লিশের মধ্যে সং’ঘর্ষ হয়। এ সময় পু’লিশের ছোড়া রাবার বুলেটে ৪০ জন গু’লিবিদ্ধ হয়। লা’ঠিপে’টায় পৌর মেয়রসহ বেশ কয়েকজন আ’হত হয়। এছাড়া মুন্সীগঞ্জ, ফরিদপুর ও ঝালকাঠিতে বিএনপির বি’ক্ষো’ভ মিছিল-সমাবেশে পু’লিশ লা’ঠিপে’টা করে। লা’ঠিপে’টায় ফরিদপুরে সাংবাদিকসহ ২২ জন আ’হত হয়। এ সময় ২০ জনকে আ’টকও করা হয়। ব্যুরো ও প্রতিনিধির পাঠানো খবর :

হবিগঞ্জ : বেলা ১১টার দিকে শহরের শায়েস্তানগর এলাকায় বিএনপির মিছিলে পু’লিশের বা’ধা দেয়াকে কেন্দ্র করে সং’ঘর্ষ হয়। এ সময় পু’লিশ রাবার বুলেট ছুড়লে ৪০ জন গু’লিবিদ্ধসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আ’হত হয়। লা’ঠিপে’টায় জে’লা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র জিকে গউছ আ’হত হন। এদিকে গ্রে’ফতার আ’তঙ্কে নেতাকর্মীরা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যেতে পারছেন না বলে অ’ভিযোগ করেছেন বিএনপি নেতারা।

মেয়র জিকে গউছ জানান, দলীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীরা সমবেত হওয়ার সময় তাদের ওপর পু’লিশ হঠাৎ আ’ক্রমণ করে। লা’ঠিপে’টা ও পু’লিশের রাবার বুলেটে অর্ধশত নেতাকর্মী আ’হত হয়। তাদের বেশিরভাগই গু’লিবিদ্ধ। অ’ভিযোগ করে তিনি বলেন, পু’লিশ এখন চিকিৎসা নেয়ারও সুযোগ দিচ্ছে না। পু’লিশ গ্রে’ফতার অ’ভিযান শুরু করেছে।

জিকে গউছ বলেন, হা’মলার সময় এক পু’লিশ কর্মকর্তা তাকে ক্র’সফা’য়ার করার হু’মকি দিয়েছেন। সং’ঘর্ষের সময় পু’লিশের ছোড়া গু’লিতে বিজয় টিভির জে’লা প্রতিনিধি ইলিয়াছ আলী মাসুকসহ অর্ধশতাধিক বিএনপি নেতাকর্মী আ’হত হন। আ’হতদের মধ্যে জে’লা যুবদল সাধারণ সম্পাদক মিয়া মো. ইলিয়াছ, ছাত্রদল সভাপতি এমদাদু হক ইমরান, সহ-সভাপতি জিল্লুর রহমান, নূরুল হক, ইছা মিয়া, বাদশা মিয়া, আলী, আল আমিন, রাসেল, শাওন, সৈয়দ আশরাফ, মাহবুব, মুর্শেদ আলম সাজন, মোশাহিদ, খালেদ, হান্নান, জিবলু, জুয়েল, এমরানের পরিচয় পাওয়া গেছে। গ্রে’ফতার আ’তঙ্কে আ’হতরা হাসপাতালে ভর্তি হননি। তবে তারা গো’পনে স্থানীয় বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডাক্তারের চেম্বারে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইয়াছিনুল হক জানান, মেয়র গউছের নেতৃত্বে বের করা মিছিলের সদস্যরা পু’লিশের সামনে উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করে এবং ধাক্কা দেয়। তখন পু’লিশের পক্ষ থেকে তাদের রাস্তায় না আসার জন্য বারবার বলা হয়। কিন্তু তারা শোনেনি। দলবল নিয়ে রাস্তায় নেমে যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। তখন পু’লিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করতে ৫৪ রাউন্ড ফাঁকা রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। মিছিলকারীদের হা’মলায় এসআই মুসলেহ উদ্দিনসহ তিন পু’লিশ সদস্য আ’হত হয়।

মুন্সীগঞ্জ : বেলা ১১টার দিকে বিএনপি কার্যালয়ের নিচে সমাবেশের পর জে’লা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক উপমন্ত্রী আবদুল হাইয়ের নেতৃত্বে বি’ক্ষো’ভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি পিটিআইয়ের কাছে গেলে পু’লিশ লা’ঠিপে’টা করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় পু’লিশের হা’মলায় জে’লা ছাত্রদলের সভাপতি আমিনুল ইসলাম জসিমসহ কমপক্ষে ছয়জন আ’হত হয়। এ সময় পু’লিশ ১০ জনকে আ’টক করে পরে ছেড়ে দেয়। জে’লা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল কুদ্দুস ধীরেন জানান, মিছিল শুরু করলে হঠাৎ পু’লিশ তাদের ওপর লা’ঠিপে’টা শুরু করে। এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি মো. আলমগীর হোসাইন জানান, বি’ক্ষো’ভের নামে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে পু’লিশ তাদের হালকাভাবে লা’ঠিপে’টা করে।

ফরিদপুর : বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহরের সুপার মার্কে’টের সামনে জড়ো হতে থাকে বিএনপি নেতাকর্মীরা। বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে মিছিল সহকারে নেতাকর্মীরা আসার সময় তারা পু’লিশের বা’ধার মুখে পড়ে। পু’লিশ তাদের ব্যানার কেড়ে নেয় এবং কয়েক দফা লা’ঠিপে’টা করে। মিছিল থেকে ২০ নেতাকর্মীকে পু’লিশ আ’টক করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পু’লিশ ১০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ৩ রাউন্ড কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে। সাংবাদিকদের দায়িত্ব পালনেও পু’লিশ বা’ধা দেয়। কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজিম উদ্দিন আহমেদ যুগান্তরকে বলেন, ২০ জনকে আ’টক করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ৩ রাউন্ড কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করেছে পু’লিশ।

পু’লিশের লা’ঠিপে’টায় জে’লা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোদাররেছ আলী ইছা, যুগ্ম সম্পাদক সৈয়দ জুলফিকার হোসেন জুয়েলসহ বেশ কয়েক নেতাকর্মী আ’হত হয়। পু’লিশের অ্যা’কশনে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। পরে নেতাকর্মীরা সংগঠিত হয়ে পু’লিশের ওপর ইটপাটকেল ছুড়লে পু’লিশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গু’লি ছোড়ে। এতে সাংবাদিক ও ব্যবসায়ীসহ বেশ কয়েকজন আ’হত হয়। ইছা ও জুয়েলসহ ২০ নেতাকর্মীকে আ’টক করে পু’লিশ। প্রেস ক্লাবে তাৎক্ষণিক এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেত্রী শামা ওবায়েদ ইসলাম পু’লিশের হা’মলার তীব্র নি’ন্দা ও প্র’তিবাদ জানান। এ হা’মলার প্র’তিবাদে জে’লা বিএনপির সভাপতি শাহাজাদা মিয়ার নেতৃত্বে বি’ক্ষো’ভ মিছিল বের করা হয়।

বিএনপির কর্মসূচি চলাকালে ফরিদপুরের সিনিয়র দুই সাংবাদিককে পি’টিয়ে গু’রুতর আ’হত করেছে পু’লিশ। তাদের মধ্যে দৈনিক নয়াদিগন্ত পত্রিকার সাংবাদিক হারুন আনছারী রুদ্রকে ফরিদপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার মাথায় ছয়টি সেলাই দেয়া হয়েছে। সাংবাদিকদের ওপর হা’মলার প্র’তিবাদে দুপুরে তাৎক্ষণিক সভা করে ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সদস্যরা।

ঝালকাঠি : শহরের ফায়ার সার্ভিস সড়কে জে’লা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে থেকে সকাল ১০টার দিকে জে’লা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম নূপুরের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা বি’ক্ষো’ভ মিছিল বের করে। এ সময় পু’লিশ তাদের ব্যানার কেড়ে নেয়। এতে বা’ধা দেয়ায় পু’লিশ নেতাকর্মীদের ওপর লা’ঠিপে’টা করে। এতে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। লা’ঠিপে’টায় সদর থানা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মো. সেলিম হাসানসহ পাঁচজন আ’হত হয়।

ঝালকাঠি থানার এসআই গৌতম কুমার ঘোষ জানান, শহরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য বিএনপি নেতাকর্মীদের চলে যেতে বলা হলেও তারা যায়নি। তাই ব্যানারটি নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here